spot_img
শনিবার, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২৪
24 C
Bangladesh
শনিবার, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২৪
শনিবার, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২৪
spot_img
আরও
    DinBartaকুষ্টিয়াখোকসাশিক্ষার্থীদের পদচারণায় প্রাণ ফিরে পেলো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো
    spot_imgspot_img

    শিক্ষার্থীদের পদচারণায় প্রাণ ফিরে পেলো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো

    সারা দেশের ন্যায় খোকসাতে শিক্ষার্থীদের পদচারণায় প্রাণ ফিরে পেলো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো!

    দীর্ঘ আঠারো মাস পর কুষ্টিয়ার খোকসা জানিপুর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় ঘন্টা বাজিয়ে ক্লাসের আহ্বান জানানো হয় বিদ্যালয়ে। পরে তাপমাত্র মেপে, মাস্ক প্রদানসহ হাতে জীবাণুনাশক স্প্রের পর ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়ে শিক্ষার্থীদেরকে বরণ করেন উক্ত বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আল মাছুম মুর্শেদ শান্ত

    শিক্ষার্থীদেরকে ফুল দিয়ে বরণ

    তবে করোনায় দীর্ঘদিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় বাল্যবিবাহ ও কৃষি কাজে অনেক শিক্ষার্থী ঝড়ে পড়লেও প্রথমদিনেই শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে উপস্থিতিতে আনন্দিত সংশ্লিটরা।

    রবিবার (১২ সেপ্টেম্বর) খোকসা উপজেলার জানিপুর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, শোমসপুর উচ্চ বিদ্যালয়, শোমসপুর বালিকা বিদ্যালয় ও ইশ্বরদী মাধ্যমিক বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হওয়ায় বিদ্যালয়গুলোতে উৎসবের আমেজ ছিলো চোখে পড়ার মত।

    উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ঘুরে কথা হয় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের সাথে তারা জানান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার প্রথমদিনে শিক্ষার্থীদের আশাব্যঞ্জক উপস্থিতি পেয়েছি। আমরা পূর্ব থেকে এসাইনমেন্ট কার্যক্রম চালু রেখেছি। অভিভাবকরাও শিক্ষার্থীদেরকে নিয়ে বিদ্যালয় এসেছে। স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে আমরা সকল প্রস্তুতি পূর্ব থেকে নিয়েছিলাম। এখন আমাদের শিক্ষা কার্যক্রম পুরোদমে চালু হলো।

    উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার নাজমুল হক উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পরিদর্শনে যাই। দেখেই মনে হচ্ছে শিক্ষার্থীদের পদচারণায় প্রাণ ফিরে পেলো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো । এ সময় তিনি তার অভিব্যক্ত ব্যক্ত করে বলেন, সরকারের নির্দেশনা মেনে স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণ করে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষার্থীদের কে বরণ করা হয়েছে।

    উল্লেখ্য, খোকসা উপজেলায় ৮টি মাদ্রাসা, ৪টি কলেজ, ২০টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও এবতেদায়ী মাদ্রাসা ৮টি এছাড়াও রয়েছে ৮৭ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এসব মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক ও মাদ্রাসায় ১৪ হাজার ৮ শত ৮০ জন শিক্ষার্থী রয়েছে এর মধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয় ও এবতেদায়ী মাদ্রাসায় শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৭ হাজার ১শত ২০ জন। তবে করোনা মহামারি কাটিয়ে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষার্থীদের পদচারণায় প্রাণ ফিরে পেলো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো এবং আবারও আগের মত স্বাভাবিক হবে সবার জীবন এমনটাই প্রত্যাশা শিক্ষক ও অভিবাবকদের।

    spot_imgspot_img

    ফলো করুন-

    সম্পর্কিত বার্তা

    জনপ্রিয় বার্তা

    সর্বশেষ বার্তা