spot_img
মঙ্গলবার, জুলাই ১৬, ২০২৪
29 C
Bangladesh
মঙ্গলবার, জুলাই ১৬, ২০২৪
মঙ্গলবার, জুলাই ১৬, ২০২৪
spot_img
আরও
    DinBartaরংপুরকুড়িগ্রামবৃষ্টির মতো ঝরছে কুয়াশা
    spot_imgspot_img

    বৃষ্টির মতো ঝরছে কুয়াশা

    কুড়িগ্রামে ঘন কুয়াশা আর হিমেল হাওয়ায় বেড়েছে দুর্ভোগ। গত তিন ধরে গভীর রাত থেকে বৃষ্টির মতো ঝরছে কুয়াশা।

    অনেক বেলা পর্যন্ত চারদিক ঢাকা পড়ে থাকে ঘন কুয়াশায়। দুপুর পর্যন্ত দেখা মেলে না সে সূর্যের।

    কুয়াশার কারণে হেড লাইট জ্বালিয়ে সড়কে চলাচল করে যানবাহন। শীত বাড়ায় দুর্ভোগে পড়েছেন শিশু, বৃদ্ধ, ছিন্নমূল ও খেটে খাওয়া নিম্ন আয়ের মানুষ।

    শীতের এই পরিস্থিতিতে বেশি বি’পদে পড়েছেন গ্রাম ও চরাঞ্চলের গরিব মানুষ। গরম কাপড়ের অভাবে রাতভর প্রচণ্ড ঠাণ্ডার সঙ্গে যুদ্ধ করতে হচ্ছে তাদের।

    এদিকে প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে মানুষ বেড় হচ্ছে না। একই সঙ্গে সকাল সকাল ফাঁকা হয়ে যায় হাট-বাজার, দোকানপাট।

    আরও পড়ুন

    শ্রমজীবীরা জানান, ঠাণ্ডার কারণে সময়মতো কাজে যোগ দিতে পারছেন না তারা। যদিও পেটের দায়ে কেউ কাজে বের হলেও ঠাণ্ডায় কাজ করতে পারছেন না তারা।

    নাগেশ্বরী উপজেলার কেদার ইউনিয়নের বাহের কেদার গ্রামের অটোরিকশা চালক শাহিন মিয়া জানান, ঘন কুয়াশার কারণে সড়কে চলাচল বিপদজ্জনক হয়ে দাঁড়িয়েছে।

    হেড লাইট জ্বালিয়েও কিছু দেখা যায় না। এ ছাড়া সড়কে যাত্রী নেই।

    নাগেশ্বরী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, ঠাণ্ডাজনিত রোগ বিশেষ করে জ্বর, সর্দি, কাশি নিয়ে হাসপাতালে অনেকে ভর্তি হচ্ছেন।

    এদের মধ্যে শিশু ও বয়স্ক রোগীর সংখ্যা বেশি।

    কুড়িগ্রাম রাজারহাট আবহাওয়া কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুবল চন্দ্র জানান, গত তিন দিন থেকে জেলার তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপরে থাকলেও মধ্য রাত থেকেই মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়ছে।

    সোমবার (৩ জানুয়ারি) জেলার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

    spot_imgspot_img

    ফলো করুন-

    সম্পর্কিত বার্তা

    জনপ্রিয় বার্তা

    সর্বশেষ বার্তা