spot_img
শুক্রবার, জুন ২১, ২০২৪
33 C
Bangladesh
শুক্রবার, জুন ২১, ২০২৪
শুক্রবার, জুন ২১, ২০২৪
spot_img
আরও
    DinBartaকুষ্টিয়াখোকসাআওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার হতে যাচ্ছেন ১৬ নেতা-কর্মী
    spot_imgspot_img

    আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার হতে যাচ্ছেন ১৬ নেতা-কর্মী

    কুষ্টিয়া জেলার খোকসা উপজেলার দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার হতে যাচ্ছেন ১৬ নেতা-কর্মী।

    ৪র্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নৌকা প্রতীকের বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা ও বিদ্রোহী প্রার্থীকে সমর্থন করায়, কুষ্টিয়ার খােকসা উপজেলার ১৬ জন নেতা-কর্মীকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে সাময়িকভাবে।

    গত ৯ ডিসেম্বর, কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগ বরাবর ১৪ জন প্রার্থী সাথে দুজন সমর্থনকারীকে দল থেকে স্থায়ী বহিষ্কার চেয়ে খােকসা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বাবুল আখতার ও সাধারণ সম্পাদক তারিকুল ইসলাম একটি চিঠি পাঠায়।

    আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার
    আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার এর আদেশ

    উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতারা বলেন, দলের সিদ্ধান্ত না মেনে বহিষ্কার হওয়া এসব নেতা-কর্মী বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে লড়ছেন এবং কেউ কেউ এদের সমর্থনও করেছেন।

    তবে এ সকল বিদ্রোহী প্রার্থী এবং সমর্থনকারীদের নির্বাচনে অংশ না নিতে বেশ কয়েকবার অনুরােধ করা হয়েছিল।

    তবে তারা দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে নির্বাচনী মাঠ দখল করে আছে। তাই দলী শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযােগে তাঁদের স্থায়ী বহিষ্কার করার জন্য আবেদন করা হয়েছে। স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের নির্দেশনা কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ দেবে।

    আগামী ২৬ ডিসেম্বর খােকসার আটটি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। এ নির্বাচনে ৪০ জন প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

    আরও পড়ুন

    যুবলীগের ৩ নেতা বহিষ্কার

    দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে আ.লীগের ৫ নেতা বহিষ্কার

    আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার হচ্ছেন কোন নেতা-কর্মী

    খােকসা ইউনিয়নে উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য বর্তমান চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী বিশ্বাস, দলীয় মনােনয়ন হিসেবে আওয়ামী লীগ কর্তৃক সুপারিশকৃত আবুল কালাম আজাদ

    এবং খােকসা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আসদুজ্জামান মকুল।

    জানিপুর ইউনিয়ন থেকে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাে. মজিবর রহমান ও সদস্য নজরুল ইসলাম।

    শিমুলিয়া ইউনিয়ন থেকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মাে. আব্দুল কুদ্স। শােমসপুর ইউয়নিয়ন থেকে উপজেলা যুবলীগের সদস্য সিরাজুল ইসলাম মুকুল।

    জয়ন্তীহাজরা ইউনিয়ন থেকে দলীয় মনােনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে দল থেকে সুপারিশকৃত মহ. আব্দুস শকীব খাঁন ও মাে. আরিফুল ইসলাম নয়ন।

    গােপগ্রাম ইউনিয়ন থেকে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল হক ফারুক।

    আমবাড়িয়া ইউনিয়ন থেকে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মনিরুজ্জামান খাঁন,

    খােকসা উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মাে. আমিনুর রহমান খান, নাজমুস সালেহিন এবং উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি আকমল হােসেন।

    এছাড়াও বিদ্রোহী প্রার্থীদের সমর্থক ও প্রস্তাবকারী হওয়ায় জানিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সন্তোষ কুমার ঘােষ

    এবং শিমুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাে. আব্দুর কুদুস।

    তবে সাময়িক বহিষ্কার হওয়া একাধিক নেতা-কর্মীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তাঁরা এখনাে বহিষ্কারের কোনাে চিঠি পাননি। বিষয়টি মাত্র শুনেছেন।

    গােপগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল হক ফারুক বলেন, আমি ছােট বেলা থেকেই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। দল করি মানুষের জন্য।

    তাঁদের সুখে-দুঃখে পাশে থাকার জন্য। এবারের ইউপি নির্বাচনে দলীয় মনােনয়ন না পেয়ে জনগণের চাপে প্রার্থী হয়েছি।

    বিদ্রোহী প্রার্থীদের অভিযােগ

    এবারে ইউপি নির্বাচনে দল থেকে যাদের মনােনয়ন দেয়া হয়েছে তাদের অধিকাংশেরই জনপ্রিয়তা নেই।

    জনগণের সাথে নেই সম্পৃক্ততা। তবুও তারা মনােনয়ন পেয়েছেন। জনগণ তাদের প্রত্যাখান করেছে। ভােটের মাঠে এর প্রমাণ পাওয়া যাবে বলেও জানান বিদ্রোহী প্রার্থীরা।

    spot_imgspot_img

    ফলো করুন-

    সম্পর্কিত বার্তা

    জনপ্রিয় বার্তা

    সর্বশেষ বার্তা